শাওনও মাহিয়া মাহির সমঝোতা চুক্তি

এখানেই সমাপ্ত হতে চলেছে মূলত কয়েকদিন ধরে চলা মাহি ও শাওনের আলোচনা। মাহি ও শাওনের দুই পরিবারের সদস্যরা সমঝোতা চুক্তি করেছেন।

এর ভিত্তিতে মাহি শাওনের বিরুদ্ধে করা মামলাটি প্রত্যাহার করবেন। আর শাওন জেল থেকে বের হয়ে মাহির বিরুদ্ধে কোনও মামলা এবং মাহির ক্ষতি হয়- এমন কোনও কাজ করবেন না এটি ছিল সমঝোতা চুক্তি মূল বিষয়।

মাহির উত্তরার বাসায় রবিবার বিকাল তিনটায় দুই পরিবারের সদস্যদের উপস্থিতিতে এ চুক্তি হয়। ৩ শ’ টাকার এ অঙ্গীকারনামায় স্বাক্ষর করেন মাহির বাবা আবু বকর ও শাওনের বাবা নজরুল ইসলাম। সাক্ষী- শাওনের বড় চাচা আবুল হাশেম ও ছোট চাচা মাহমুদুল হাসান।

এ ঘটনা সম্পর্কে মাহি বলেন, ‘এর আগেও আমাকে জড়িয়ে অনেক কিছু হয়েছে কিন্তু এবারের ঘটনা আমার জন্য খুব লজ্জাজনক। ছবিগুলো যখন প্রকাশিত হয়েছে, আমি তখন শুধু আমার শ্বশুর-শাশুড়ি ও পরিবারের কথা ভেবেছি। শাওন আমার ছোটবেলার বন্ধু। তার দ্বারা আমার এত বড় ক্ষতি সম্ভব নয়।
শাওনের বাবা জনাব নজরুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা আর এ বিষয়টি নিয়ে এগুতে চাই না।’
তবে শাওন ও মাহির ‘বিয়ে’ নিয়ে কোনও পক্ষই কোনও কথা প্রকাশ করেনি।
সিলেটের ব্যবসায়ী ও কম্পিউটার প্রকৌশলী পারভেজ মাহমুদ অপুর সঙ্গে ২৫ মে মাহির বিয়ে হয়। ২৭ মে শাওন নিজেই তার ফেসবুক আইডিতে চিত্রনায়িকা মাহির সঙ্গে কিছু ছবি প্রকাশ করেন। প্রকাশের পর থেকে আলোচনার ঝড় ওঠে বিভিন্ন মিডিয়া । অপু সঙ্গে মাহির বিয়ের পরদিন থেকেই কয়েকটি গণমাধ্যমে মাহির একাধিক বিয়ে সংক্রান্ত ছবি প্রকাশ হতে থাকে। সেখানে ছবি প্রকাশের পাশাপাশি দাবি করা হয়- এর আগেও একাধিকবার মাহির বিয়ে হয়েছে।
এরপর দিন  মাহি বাদি হয়ে উত্তরা পশ্চিম থানায় সাইবার অ্যাক্টে একটি মামলা দায়ের করেন। পরদিন দক্ষিণ বাড্ডার এক বাসায় অভিযান চালিয়ে শাওনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। দুইদিনের রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদেও শাওন নিজেকে মাহির স্বামী বলে দাবি করেন। এমনকি আদালতে তাদের বিয়ের কাবিননামা উপস্থাপন করেন। শাওন এখন জেলহাজতে আছেন।

Leave A Comment Here

comments

Check Also

আমি কীভাবে চলব শাকিব তো আমাকে বলেনি

ঢালিউড কুইনখ্যাত নায়িকা অপু বিশ্বাস। শাকিব খানের সঙ্গে জুটি বেঁধে অভিনয় করতে গিয়ে ২০০৮ সালে ...